Header Ads

ক্যালোফোর্নিয়া থেকে স্নাতক, কীভাবে রাজনীতিতে উত্থান দুষ্মন্ত চৌতালার

নয়াদিল্লি: হরিয়ানার বিধানসভা ভোটে ‘ফ্যাক্টর’ হিসাবে কাজ করতে পারে আঞ্চলিক দল জননায়ক জনতা পার্টি (জেজেপি)। এমন সম্ভাবনা আগেই তৈরি হয়েছিল। বৃহস্পতিবার সকাল থেকে ভোটের ফল সামনে আসতে শুরু করতেই তেমনই ইঙ্গিত পাওয়া গেল। ট্রেন্ড বলছে, কংগ্রেস-বিজেপি সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাচ্ছে না কেউই। সেক্ষেত্রে রাজ্যে ক্ষমতায় আসতে জেজেপি-র হাত ধরতে হবে। এমনকি জেজেপি-র দুষ্মন্ত চৌতালা মুখ্যমন্ত্রী বা উপমুখ্যমন্ত্রী পদে আসতে পারেন, এমন সম্ভাবনাও তৈরি হয়েছে।

ইতিমধ্যেই কংগ্রেস, বিজেপি উভয়েই ফোন করছে দুষ্মন্তকে। যদিও তিনি কী সিদ্ধান্ত নেবেন, তা নিয়ে ধোঁয়াশাতেই রেখেছেন।

দেখে নেওয়া যাক ভারতীয় রাজনীতিতে শিরোনামে উঠে আসা এই তরুণ রাজনীতিকের উত্থান। জেজেপি সুপ্রিমো দুস্মন্ত চৌতালার হরিয়ানার রাজনীতিতে উথান উল্কাগতিতে। প্রাক্তন উপপ্রধানমন্ত্রী দেবী লাল-এর নাতি দুষ্মন্ত রাজনীতিতে আসার পর থেকেই জনপ্রিয়তা বৃদ্ধি পায় ক্রমশ।

ক্যালিফোর্নিয়া থেকে বিজনেস অ্যাডমিনিসট্রেশনে স্নাতক এবং জাতীয় আইন বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আইনে মাস্টার্স করা দুষ্মন্ত চৌতালার রাজনীতিতে যাত্রা শুরু হয়েছিল ভারতীয় জাতীয় লোক দলের হাত ধরে। রাজনীতিতে আসার পর থেকেই দুষ্মন্তের রাজনীতি জীবনে জড়িয়ে যায় একের পর এক চমক।

সালটা ২০১৪, গোটা দেশজুড়ে ছড়িয়ে পড়েছে লোকসভা নির্বাচনের উত্তাপ। আর সেই নির্বাচনেই হরিয়ানা থেকে ২৬ বছর বয়সী দুষ্মন্ত চৌতালা হারিয়ে দেন জনহিত কংগ্রেসের কুলদীপ বিষ্ণোইকে। কুলদীপকে মোট ৩১ হাজার ৮৪৭টি ভোটে হারিয়ে ভারতীয় রাজনীতিতে সর্বকনিষ্ঠ সাংসদ হিসাবে দিল্লির দরবারে হাজির হন তিনি।

হরিয়ানার এই সর্বকনিষ্ঠ সাংসদের রাজনীতিক জীবন কিন্তু সিনেমার চিত্রনাট্যের থেকে কিছু কম নয়। ২০১৮ সালের ৯ ডিসেম্বর ভারতীয় জাতীয় লোক দল থেকে বহিষ্কৃত হন চৌতালা।

হরিয়ানার জনপ্রিয় নেতা তথা প্রাক্তন উপ প্রধানমন্ত্রী দেবী লালের নাতি হিসাবে পরিচিতি ছিলই। হরিয়ানার মানুষের সমর্থনও ছিল। তাই লোক দল থেকে বেরিয়ে নিজের দল তৈরি করেন দুষ্মন্ত চৌতালা। জননায়ক জনতা পার্টি (জেজেপির) যাত্রা সেখান থেকেই শুরু। আঞ্চলিক শক্তি হিসেবে ক্রমেই রাজনীতির লাইমলাইটে আসতে শুরু করে জেজেপি। জেজেপির রাজনীতিতে আসার সময় হরিয়ানার জিন্দে জনতার উদ্দেশ্যে ভাষণ দেন দুষ্মন্ত। প্রায় ৬ লক্ষ মানুষের জমায়েতই ইঙ্গিত দিয়েছিল রাজনীতিতে ক্রমেই কালো ঘোড়া হিসাবে পরিচিতি পেতে পারেন তিনি।

১৯৮৬ এরপর কোনও রাজনৈতিক দলই এইরকম বিপুল জনতার সমাবেশ করতে পারেনি। ওই বছরই জিন্দের উপনির্বাচনে ৩৭৬৩১ ভোট পেয়ে দ্বিতীয় স্থানে উঠে আসে জেজেপি। এই অভাবনীয় উত্থানে অভিভূত হয়ে চৌতালাকে সমর্থন জানান দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

মূল রাজনীতিতে সাফল্য পেয়ে ছাত্র রাজনীতিতেও নিজের শক্তি বাড়ায় জেজেপি। ছাত্র সংগঠনেও নিজের শক্তি প্রদর্শন করে রাজ্য রাজনীতিতে নিজের পথ মসৃণ করে চৌতালার দল। শিক্ষা, স্বাস্থ্য, কর্মসংস্থান এবং কৃষি ক্ষেত্রে বারবার সরব হওয়া চৌতালার দল হরিয়ানার মানুষের সমর্থন ক্রমেই বাড়তে থাকে। এর সঙ্গেই সূক্ষভাবে মিশে যায় জাট আর সংখ্যালঘুদের সমর্থন, ফলে আরও শক্তি বাড়ায় জেজেপি।

চলতি মাসে হরিয়ানার বিধানসভা ভোট ছিল জেজেপির কাছে নিজের শক্তি যাচাই করার মোক্ষম সুযোগ। হরিয়ানার রাজনীতিতে ফ্যাক্টর হিসাবে কাজ করতে পারে জেজেপি। ভোটের আগে থেকেই এমনটাই মনে করছিলেন রাজনৈতিক বিশেষজ্ঞরা। বুথ ফেরত সমীক্ষাতেই ছিল তেমনই ইঙ্গিত। বিজেপি-কংগ্রেস ব্যালট যুদ্ধের মাঝখানে আঞ্চলিক শক্তি হিসাবে জেজেপি ‘ফ্যাক্টর’ হরিয়ানার রাজনীতিতে কি সমীকরণ তৈরি করে তা জানতেই অধীর আগ্রহে অপেক্ষায় গোটা দেশ।

The post ক্যালোফোর্নিয়া থেকে স্নাতক, কীভাবে রাজনীতিতে উত্থান দুষ্মন্ত চৌতালার appeared first on Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading online Newspaper.



from Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading online Newspaper
Source Url: https://www.kolkata24x7.com/who-is-dushyant-chautala-of-jjp-may-be-kingmaker-of-haryana-election/

No comments

Powered by Blogger.