Header Ads

‘বিশ্বাসঘাতক শ্যামাপ্রসাদ’ নয় , রামমোহনের নামে হোক কলকাতা বন্দর

সৌপ্তিক বন্দ্যোপাধ্যায়, কলকাতা: কলকাতা বন্দরের নাম শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায়ের নামে করায় প্রথম থেকেই বিতর্ক চলছে। এবার রীতিমতো রাস্তায় নেমে শুরু হল প্রতিবাদ। অংশ নিল ছাত্র ছাত্রীর দল। দাবী বন্দরের নাম যদি পরিবর্তন করতেই হয়, তবে সেই নাম হোক রাজা রামমোহন রায়ের নামে।

বুধবার বিকেলে বিবাদী বাগ থেকে পোর্ট ট্রাস্টের হেড অফিস ফেয়ারলি প্লেস পর্যন্ত কার্যত শ্যামাপ্রসাদ এবং মোদী বিরোধী স্লোগান দিয়ে পথে নামল ছাত্র দল। বন্দরের নাম পরিবর্তনের এই প্রতিবাদী মিছিলের মূল উদ্যোগী যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র সৈকত সিট।

তিনি বলেন, ‘১২ জানুয়ারী নেতাজী ইন্ডোর স্টেডিয়ামে কলকাতা পোর্ট ট্রাস্টের ১৫০ বছর উদযাপন উপলক্ষ্যে নরেন্দ্র মোদী যেটা করে গেলেন সেটা আমরা, সাধারণ ছাত্রছাত্রীরা, একেবারেই হালকা চালে নিচ্ছি না। ২০১৮ সালে ‘মুখ্য বন্দর কর্তৃপক্ষ আইন(Major Port Authority Act, 2018)’ প্রণয়নের মাধ্যমে ইতোমধ্যেই আপনি বন্দরগুলোতে বেসরকারীকরণের দুয়ার ব্যাপকভাবে খুলে দিয়েছেন। এটা বেশীরভাগ মানুষই জানেন না। ফলে দেশের সম্পদকে দেশের মানুষের হাত থেকে এর মধ্যেই আপনি মুনাফাখোর বেনিয়াদের হাতে চুপিচুপি তুলে দেওয়ার যাবতীয় বন্দোবস্ত করে রেখেছেন।’ ছাত্রদের দাবী , কেন্দ্রীয় সরকার বেসরকারিকরন করে বহু মানুষের কাজ হারাবার ব্যবস্থা করে রেখেছে। এখন নাম পরিবর্তন করে আরও খারাপ কাজ করছে। হুঁশিয়ারি, ‘আমরা এটার শেষ দেখে ছাড়বো।’

সৈকত জানিয়েছেন, ‘কলকাতা বন্দরের নাম নাকি ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় বন্দর! কিভাবে একজন হিন্দুত্ববাদী , বিশ্বাসঘাতকের নামে ঐতিহাসিক কলকাতা বন্দর হতে পারে? যে বন্দর ঐতিহাসিক নৌ বিপ্লবের অঙ্গ সেই বন্দর কীভাবে একজন ইংরেজ চাটুকারের নামে হতে পারে? শ্যামাপ্রসাদ বাংলার নবজাগরণের মুখ তো কোনওভাবেই নয়। বাঙালির এবং বাংলার নবজাগরণের মুখ রাজা রামমোহন রায়। তাই আমরা ওনার নামে এই বন্দরের নাম চাইছি।’

নাম বদলের প্রতিবাদীদের দাবী, ‘হিন্দু মহাসভা’র একদা সভাপতি শ্যামাপ্রসাদ ভারতীয় জনসঙ্ঘের প্রতিষ্ঠাতা (কার্যত বিজেপির-ই প্রতিষ্ঠাতা, কারণ জনসঙ্ঘীরা ১৯৮০ সালে নবনির্মিত বিজেপিতে মিশে যায়)। কাশ্মীর প্রসঙ্গে হিংস্র দখলদারী মনোভাবের জন্য নেহেরু মন্ত্রীসভার এই পদত্যাগী মন্ত্রী ইতিহাসে কুখ্যাত। কেউ ভুলতে পারবে না স্বাধীনতার আগে বাংলায় ফজলুল হক মন্ত্রীসভায় যখন তিনি মন্ত্রী ছিলেন, চরম দুর্ভিক্ষে হাজার-হাজার মানুষকে মরতে দেখেও তিনি কুটোটুকুও নাড়েননি। ‘ভারতছাড়ো আন্দোলন’-এর বিরোধিতা করতে অন্যান্য বিশ্বাসঘাতক হিন্দুত্ববাদীদের মতোই তিনিও কসুর করেননি।স্বাধীনতা সংগ্রামের সময় সুভাষ বোসের সাথে শ্যামাপ্রসাদের ঝামেলা আমাদের কতজনের জানা আছে? স্বাধীনতার লড়াইকে সাম্প্রদায়িকতা দিয়ে রাঙানোর ব্যাপক বিরোধী ছিলেন সুভাষ। এমন অবস্থা হয় যে, আলোচনায় কাজ না হওয়ায় সুভাষের অনুগামীরা শ্যামাপ্রসাদকে একটি সভায় ঢিল মেরেছিল।

তারা আরও জানাচ্ছেন, বাংলার ছাত্ররা ভুলে যেতে পারে না, কোলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য থাকাকালীন শ্যামাপ্রসাদ পড়ুয়াদের হুকুম করেছিলেন ব্রিটিশদের পতাকাকে অভিবাদন করতে হবে। ছাত্ররা প্রতিবাদে ফেটে পড়লে শ্যামাপ্রসাদ তাদেরকে চাবুক মারার নির্দেশ দেন। ক্ষোভে ফেটে পড়ে ছাত্রছাত্রীরা ধর্মঘট শুরু করে। নেতৃস্থানীয় ধরিত্রী গাঙ্গুলী ও উমাপদ মজুমদারকে উপাচার্য শ্যামাপ্রসাদ বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত নেন। প্রতিবাদী ছাত্রসমাজ মিছিল করে বিশ্ববিদ্যালয়ের সিন্ডিকেট ঘেরাও করলে লড়াইয়ের চাপে সিন্ডিকেট তাদের বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত প্রত্যাহার করে। এমন বাঙালী বাংলার আপামর জনসাধারণের কাছের ছিলও না, থাকবেও না।

প্রতিবাদীরা স্পষ্ট বলছেন, ১৯৪৬-এর ব্রিটিশ বিরোধী নৌবিদ্রোহের সময়কার জ্বাজ্জল্যমান ইতিহাস বহন করে চলেছে। স্বাধীনতা সংগ্রামের এমন গৌরবোজ্জ্বল স্মারক আর যাই হোক স্বাধীনতা সংগ্রামে নানা সময় বিশ্বাসঘাতকতা করা কোনও মানুষের নামে হতে পারে না। যদি কলকাতা বন্দরের নাম বাংলার কোনো মনীষীর নামে রাখতেই হয় তাহলে মনে হয় ভারতের প্রথম ‘আধুনিক মানুষ’ বলে যাঁকে আখ্যা দেওয়া হয়, সেই রামমোহন রায় অগ্রগণ্য।

সৈকত বলেন, ‘যুক্তিনির্ভর জ্ঞানালোক দিয়ে পুষ্ট এবং দেশজ গুণাবলী দিয়ে বিকশিত রামমোহন সতীদাহ রদ, নারীশিক্ষা প্রচলন, বাল্যবিবাহ রদ, গঙ্গাসাগরে সন্তান বিসর্জন বন্ধ, বহুবিবাহ রদ ইত্যাদি বিভিন্ন ইতিবাচক প্রগতিশীল কার্যক্রমকে লাগু করার উদ্যোগ নিয়েছেন এবং এগুলোর জন্য সারাজীবন লড়ে গেছেন। আধুনিকতায় পদার্পণের পথে ভারতীয় সমাজসংস্কারের পুরোধা মানুষ তিনি। অর্থাৎ, তিনি বাংলা তথা ভারতের নবজাগরণের পুরোধা। তাই আমাদের মনে হয়েছে রামমোহন অগ্রগণ্য।স্বভাবতই আমাদের দাবী, ‘ডঃ শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় বন্দর’-এর নাম বদলে ‘রামমোহন রায় বন্দর’ রাখতে হবে।’

The post ‘বিশ্বাসঘাতক শ্যামাপ্রসাদ’ নয় , রামমোহনের নামে হোক কলকাতা বন্দর appeared first on Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading online Newspaper.



from Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading online Newspaper
Source Url: https://www.kolkata24x7.com/the-kolkata-port-trust-should-name-of-rammohan/

No comments

Powered by Blogger.