নয়াদিল্লি: গত কয়েকদিন ধরে লাদাখের সীমান্তের কাছে তৈরি হয়েছে উত্তেজনা। চিন সেনা ক্রমশ ঘাঁটি গাড়ছে ভারতের সীমান্ত বা লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোলের কাছে। এবার প্রকাশ্যে এল সেই স্যাটেলাইট ইমেজ। আর তাতে দেখা যাচ্ছে একাধিক জায়গায় তাঁবু খাঁটিয়েছে চিনের সৈন্যবাহিনী।

এবিপি নিউজে প্রকাশিত সেই ছবি ও রিপোর্ট অনুযায়ী, অন্তত ৮০টি চিনা তাঁবু দেখা যাচ্ছে গালোয়ান ভ্যালির কাছে। তাদের সঙ্গে বেশ কিছু মেশিন পত্র আছে বলেও মনে করা হচ্ছে, যা দিয়ে বাংকার তৈরি করা যেতে পারে। এসব দেখে অনুমান করা হচ্ছে ভারত-চিন সীমান্তে তৈরি হওয়া এই নতুন সংঘাত এখনও শেষ হবে না।

সংখ্যায় কম হলেও বেশ কিছু ভারতীয় সেনার তাঁবুও দেখা যাচ্ছে ওই অঞ্চলে। তবে দুই দেশের সেনার ক্যাম্পের মধ্যে বেশ কিছুটা দূরত্ব রয়েছে। Australian Strategic Policy Institute -এর এক সদস্য ওই স্যাটেলাইট ইমেজ প্রকাশ করেছে বলে দাবি ওই সংবাদমাধ্যমের।

কিছুদিন আগে প্রথমে প্যাংগং তোসো লেক ও পরে গালোয়ান ভ্যালিতে চিনের সেনা পাঠানোর খবর প্রকাশ্যে আসে। শোনা যাচ্ছে, ওই গালোয়ান ভ্যালিতে আরও বেশি চিনা সৈন্যের আনাগোনা বাড়ছে। গত দু’সপ্তাহে ওই এলাকায় অন্তত ১০০ টা তাঁবু লাগানো হয়েছে বলে সূত্রের খবর।

এরই মধ্যে শুক্রবার সবার অজান্তে লে-তে ঘুরেও এসেছেন সেনাপ্রধান এমএম নারাভানে।

ইন্ডিয়া টুডে-তে প্রকাশিত একটি রিপোর্ট বলছে, সম্প্রতি ভারতীয় সেনা ও কয়েকজন আইটিবিপি জওয়ানকে আটকও করেছিল চিন। পরে তাঁদের ফিরিয়ে দেওয়া হয়, অস্ত্রশস্ত্রও ফেরত দেওয়া হয়েছে। সংবাদমাধ্যমকে একটি সূত্র জানিয়েছে যে কিছুক্ষণের জন্য আটক করা হয়েছিল তাদের।

সম্প্রতি এমন খবরও শোনা যায় যে, লাদাখের বিখ্যাত প্যাংগং লেকের পূর্ব তীরে একের পর এক চিনা নৌকা জমায়েত করছে। বাড়ানো হয়েছে নজরদারি। উল্লেখ্য এই লেকের পূর্ব প্রান্ত চিনের সীমান্ত হলেও, পশ্চিম প্রান্ত ভারতের অধীনে। সেখানেই রাস্তা তৈরি করেছে ভারত। তা নিয়েই আপত্তি চিনের।

এই টানাপোড়েনে ক্রমশ উত্তেজনা বাড়ছে বিশ্বের সর্বোচ্চ সীমান্তের এলএসি (লাইন অফ অ্যাকচুয়াল কন্ট্রোল) জুড়ে। এর আগে তিনটি পেট্রলিং নৌকা মোতায়েন রাখত চিন। এখন সেই সংখ্যা তিন গুণ বেড়ে গিয়েছে। একই সংখ্যক পেট্রলিং নৌকা রাখা শুরু করেছে নয়াদিল্লিও।

৪৫ কিমি সীমান্ত জুড়ে চলছে টহলদারি। সূত্র বলছে চিনের সঙ্গে ভারতের সীমান্ত সমস্যার মূল সূত্রপাত প্যাংগঙ লেক ঘিরে। শুধু নৌকার সংখ্যা বাড়ানোই নয়, তাঁদের শারীরিক ভঙ্গিতেও এসেছে আক্রমণাত্মক মনোভাব। এপ্রিল মাসের শেষ থেকেই চিনের মানসিকতার এই পরিবর্তন দেখা গিয়েছে। উল্লেখ্য ১৯৯৯ সালে কার্গিল থেকে যখন ভারতীয় সেনা পাকিস্তানি সেনাকে হঠাতে ব্যস্ত ছিল, তখনই প্যাংগঙ সীমান্ত এলাকায় পেট্রোলিং শুরু করে চিনা সেনা। তা যে রীতিমত উদ্দেশ্যপ্রণোদিত, তা বুঝতে অসুবিধা হয় না।

শুধু লাদাখ সীমান্তই নয়, এর আগে উত্তরাখণ্ডে মানস সরোবর যাত্রার জন্য একটি সংক্ষিপ্ত আন্তর্জাতিক সড়ক উদ্বোধন ঘিরেও বিতর্কের সূত্রপাত হয়। নেপালের দাবি, ওই সড়কের কিছু অংশ ভারত নিজের বলেছে।

The post সীমান্তে কাছে চিন সেনার তাঁবু, সঙ্গে মেশিনপত্র, প্রকাশ্যে স্যাটেলাইট ইমেজ appeared first on Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading online Newspaper.



from Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading online Newspaper
Source Url: https://www.kolkata24x7.com/china-army-tent-at-border-reveals-sattelite-image/