ব্রিটিশ আমল থেকে নানা বিবর্তনে সিইএসসি

সিদ্ধার্থ মুখোপাধ্যায়, কলকাতা: কলকাতার বিদ্যুৎ সরবরাহকারী সংস্থা হল সিইএসসি। কলকাতার পাশাপাশি হাওড়া, হুগলি, উত্তর চব্বিশ পরগনা ও দক্ষিণ চব্বিশ পরগনার কিছু কিছু স্থানে এই সংস্থা বিদ্যুৎ সরবরাহ করে থাকে। ব্রিটিশ আমল থেকে এই সংস্থা শহরে বিদ্যুৎ দিয়ে আসছে। একটু পিছনে ফিরে দেখা যাক এই সংস্থার ইতিহাস।

কলকাতায় পি ডব্লিউ ফ্লুইড অ্যান্ড কোম্পানি প্রথম বৈদ্যুতিক বাতি জ্বালায় ১৮৭৯ সালের ‌২৪ জুলাইয়ে। তার কিছুদিনের মধ্যে অবশ্য দে -শীল অ্যান্ড কোম্পানি অনুরূপ বৈদুতিক বাতি জ্বালিয়ে ছিল। এরপর ১৮৮১ সালের ৩০জুন ম্যাকিনন অ্যান্ড ম্যাকেঞ্জি ৩৬টি বিদ্যুতের বাতি জ্বালিয়ে ছিল তাদের গার্ডেনরিচের কাপড়ের কলে। সেই সময় কলকাতা হল ব্রিটিশদের দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ শহর। ১৮৯৫ সালে তৎকালীন বাংলার সরকার ক্যালকাটা ইলেকট্রিক লাইটিং অ্যাক্ট পাস করে।

১৮৯৭ সালের ৭ জানুয়ারি কিলবার্ন অ্যান্ড কোম্পানিটি ইন্ডিয়ান ইলেকট্রিক কোম্পানি লিমিটেডের এজেন্ট হিসেবে কলকাতায় বিদ্যুৎ সরবরাহের লাইসেন্স পায়। প্রথমে লাইসেন্স দেওয়া হয়েছিল ৫.৬৪ বর্গমাইল অঞ্চলজুড়ে। যা প্রাথমিকভাবে দেওয়া হয়েছিল ২১ বছরের জন্য।

কিছুদিন পরেই অবশ্য কোম্পানিটির নাম পরিবর্তন করে হয় ক্যালকাটা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কর্পোরেশন লিমিটেড‌ এবং ১৮৯৭ সালে এই সংস্থাটি লন্ডনে নথিভূক্ত হয়। এইসময় সংস্থার ক্যাপিটাল এক হাজার পাউন্ড থেকে বাড়িয়ে এক লক্ষ পাউন্ড করা হয়। সেই সময় এর শেয়ার ইস্যু করা হলে প্রথম দিনেই ওভার সাবস্ক্রাইব হয়েছিল।

পরীক্ষামূলক ভাবে ১৮৯৮ সালের ৬ ডিসেম্বর বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়েছিল শহরে। সেদিন বিদ্যুৎ সরবরাহ হয়েছিল ব্যাংক অফ বেঙ্গল (বর্তমানে স্টেট ব্যাংক অফ ইন্ডিয়া), চৌরঙ্গীতে অবস্থিত বেঙ্গল ক্লাব সহ বেশ কিছু বসত বাড়িতে। ওই সময় বিজ্ঞাপন করে ঘোষণা করা হয়- এই সংস্থাটি কলকাতায় বাণিজ্যিক প্রতিষ্ঠান এবং বসত বাড়িতে বৈদ্যুতিক বাতি জ্বালানোর ব্যবস্থা করতে পারে।

১৮৯৯সালের১৭এপ্রিল প্রিন্সেপ স্ট্রিটের কাছে ইমাম বাগ লেনে ক্যালকাটা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কর্পোরেশনের কলকাতায় তথা ভারতে প্রথম থার্মাল পাওয়ার জেনারেটিং স্টেশনটি স্থাপিত হয়। সেখানে তিনটি ৫০০ অশ্বশক্তি বিশিষ্ট বয়লার যেগুলিকে সর্বাধিক ৮০০ অশ্বশক্তিতে বাড়ানো সক্ষম এবং প্রয়োজন হলে আটটি ডায়নামো এবং একটি স্টোরেজ ব্যাটারি রাখা হয়েছিল ব্যবহারের জন্য।

এর ফলে কলকাতায় বিদ্যুৎ আসে নিউইয়র্কের ১৭ বছর পর এবং লন্ডনের ১১ বছর পর। কারণ ওই দুই শহরে বিদ্যুৎ এসেছিল যথাক্রমে ১৮৮২ এবং ১৮৮৮ সালে। তখন প্রাথমিকভাবে এক ইউনিট বিদ্যুতের দাম ধার্য করা হয়েছিল এক টাকা যা ছিল লন্ডনের বিদ্যুতের দামের সমান। কলকাতার কিছুদিন পরেই অবশ্য বম্বেতে বিদ্যুৎ এসেছিল ১৯০০ সালের নভেম্বর মাসে।

কলকাতায় বিদ্যুৎ আসার ফলে জনজীবনে বেশ কিছু পরিবর্তন ঘটে যায়। শুধু ঘরে বাতি জ্বালানো নয়,‌ আরও কিছু‌ কাজে বিদ্যুতের প্রয়োগ শুরু হয়। যেমন হাতে টানা পাখার বদলে‌ বৈদ্যুতিক পাখার সঙ্গে পরিচয় হয় এই শহরের মানুষের। সেই সময় কিলবার্ন অ্যান্ড কোম্পানি ক্যালকাটা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কর্পোরেশনের হয়ে পাখা ভাড়া দিতে উদ্যোগী হয়। পুরনো সংবাদপত্র অনুসারে ১৮৯৯ সালের ৬মে এমন বিজ্ঞাপন দেওয়া হয়েছিল – ‌ ১৮ টাকায় দিনে রাতে একটি বৈদ্যুতিক পাখা ব্যবহার করার জন্য ভাড়া করা যাবে এবং বিদ্যুৎ সরবরাহ হবে।বিবর্তন ঘটে গেল ট্রামের ক্ষেত্রেও। ১৯০২ সালে ক্যালকাটা ট্রামওয়েজ কোম্পানি ঘোড়ায় টানা ট্রামের বদলে ইলেকট্রিক ট্রাম চালু করে।

১৯০৬ সালে আরও তিনটি পাওয়ার জেনারেটিং স্টেশন স্থাপিত হয়।‌ পরবর্তী কালে ১৯৩৩ সালে ধর্মতলা অঞ্চলের ভিক্টোরিয়া হাউসে কোম্পানির কার্যালয় স্থানান্তরিত হয়। বর্তমানে এটিই কোম্পানির সদর দফতরের ঠিকানা। পরবর্তীকালে বিদ্যুতের ব্যবহার যেমন বেড়েছে পাশাপাশি বেড়েছে বিদ্যুতের চাহিদা এবং এই সংস্থার বিদ্যুৎ সরবরাহের এলাকা।

১৯৭০ সালে এই সংস্থার নিয়ন্ত্রণ‌ লন্ডন থেকে কলকাতায় সরে আসে। ১৯৭৮ সালে কোম্পানিটির নাম ফের পরিবর্তন করা‌ হয়। নতুন নাম হয় ক্যালকাটা ইলেকট্রিক সাপ্লাই কর্পোরেশন (ইন্ডিয়া) লিমিটেড। ১৯৭০ এবং ১৯৮০-এর দশক থেকে কলকাতায় নিয়মিত পাওয়ার কাট বা লোডশেডিং দেখা যায়।

ভারতীয় শিল্পগোষ্ঠী আরপিজি গ্রুপ এই কোম্পানির সঙ্গে যুক্ত হলে ১৯৮৯ সালে কোম্পানির নতুন নামকরণ হয় সিইএসসি লিমিটেড। পরবর্তীকালে ২০১১ সালে আরপিজি গোষ্ঠীর প্রতিষ্ঠাতা শিল্পপতি আরপি গোয়েঙ্কা তার সম্পত্তি দুই ছেলের মধ্যে ভাগ করে দিলে সিইএসসি যায় তার ছোট ছেলে সঞ্জীব গোয়েঙ্কা তথা আরপি সঞ্জীব গোয়েঙ্কা গোষ্ঠীর হাতে।

তথ্য ঋণ: উইকিপিডিয়া এবং সিইএসসি ওয়েবসাইট

The post ব্রিটিশ আমল থেকে নানা বিবর্তনে সিইএসসি appeared first on Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading online Newspaper.



from Kolkata24x7 | Read Latest Bengali News, Breaking News in Bangla from West Bengal's Leading online Newspaper
Source Url: https://www.kolkata24x7.com/evolution-of-cesc-since-british-period/

Post a Comment

0 Comments